ধানের দাম বেশি থাকায় কৃষকদের মুখে হাসি

ডেস্ক নিউজ:  শায়েস্তাগঞ্জ আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কাটা চলছে পুরোদমে, ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন কৃষকরা। সারা বছরের ধানের খোরাক অগ্রাহায়ণ মাসের ধান থেকেই রাখা হয়। সকালে কুয়াশা পড়লেও শায়েস্তাগঞ্জে ইদানীং ভালো রোদ থাকায় ধান শুকাতে তেমন বেগ পেতে হয়নি কৃষকদের।

প্রতি একর ধান কাটা হচ্ছে দুই থেকে আড়াই হাজার টাকায়। আবার অনেকেই জনপ্রতি ৫শ টাকা পারিশ্রমিকে ধান কাটাচ্ছেন। ধান কাটার শ্রমিক কিছুটা সংকট থাকায় অনেকেই পাকা ধান সঠিক সময়ে বাড়িতে আনতে পারছেন না, এজন্য অনেককেই আবার বেশি টাকা শ্রমিককে দিয়ে কাটাচ্ছেন ধান।

তবে এবার আমন ধানের বেশ ভালো ফলন হয়েছে, পাশাপাশি বাজারে ও ধানের দাম বেশি থাকায় কৃষকদের মুখে দেখা গেছে তৃপ্তির হাসি।

অগ্রাহায়ণ মাসে দম নেই বাড়ির কৃষাণীদেরও। ধান দিনভর সেদ্ধ দিয়ে একটানা ৪-৫ দিন রোদে শুকিয়ে গোলাভরে রাখছেন তারা। আবার ধানের খড় ও শুকিয়ে মোড়া করে রাখছেন গরুর খাবারের জন্য।

শায়েস্তাগঞ্জে আমন ধান বাজারে বিক্রি হচ্ছে এক হাজার থেকে ১২শ টাকা মণ, আবার চিকন ধান বিক্রি হচ্ছে ১৫শ টাকা দরে। কিন্তু শায়েস্তাগঞ্জে এবার বন্য শুকরের উৎপাতের কারণে অনেক কৃষকই পরিমাণ মত ধান ঘরে তুলতে পারেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

SuperWebTricks Loading...
Headlines